রাজধানীর সব এলাকাকেই দূষণমুক্ত করা হবে : পরিবেশ মন্ত্রী


ডেস্ক রিপোর্ট : পর্যায়ক্রমে রাজধানীর সব এলাকাকেই হর্ণমুক্ত এলাকা হিসেবে ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন।
মঙ্গলবার সচিবালয়ের সামনে সচিবালয়ের চারপাশের রাস্তাকে ‘হর্ণমুক্ত এলাকা’ ঘোষণার লক্ষ্যে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা জানান।
মন্ত্রী বলেন, সচিবালয়ের চারপাশ হর্ণ মুক্ত রাখতে এই ধরনের কার্যক্রম শুধু সরকারি আদেশ-নির্দেশের মাধ্যমে বস্তবায়ন কষ্টসাধ্য। সবার সহযোগিতায় এ কার্যক্রম সফল হতে পারে।
তিনি বলেন, শব্দদূষণ (নিয়ন্ত্রণ) বিধিমালা-২০০৬ ধারা অনুযায়ী নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গ করে নীরব এলাকায় চলাচলকালে যানবাহনে হর্ণ বাজানো দন্ডনীয় অপরাধ। এই অপরাধের জন্য প্রথমবার অনধিক ১ (এক) মাস কারাদন্ড বা অনধিক ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ডে বা উভয় দন্ডের বিধান আছে। আর কেউ যদি পরবর্তী সময়ে একই অপরাধ করেন সে ক্ষেত্রে অনধিক ৬ (ছয়) মাস কারাদন্ড বা অনধিক ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ডে বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবে।
মন্ত্রী জানান, মঙ্গলবার এ কার্যক্রম উদ্বোধনের পাশাপাশি স্টিকার লাগানো, লিফলেট বিতরণ, মৌখিক অনুরোধসহ বিভিন্নভাবে চালকদের অবহিতকরণের কাজ চলবে। আগামীকাল বুধবার থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জিরো পয়েন্ট, পল্টন মোড়, সচিবালয় লিংক রোড হয়ে জিরো পয়েন্ট এলাকায় হর্ণ বাজালে জরিমানা করা হবে।
এ সময় মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল¬াহ আল মোহসীন চৌধুরী, পরিবেশ মন্ত্রণালয় ও পরিবেশ অধিদপ্তরের উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানের পর এক র‌্যালি সচিবালয়ের সামনের রাস্তা প্রদক্ষিণ শেষে প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালির পর মন্ত্রী চলমান গাড়ির চালকেদের সাথে দেখা করে হর্ন না বাজানোর অনুরোধ করেন।
উল্লেখ্য, গত ২৫ নভেম্বর ঢাকার বায়ু ও শব্দদূষণ প্রতিরোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের লক্ষ্যে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ে এক জরুরি আন্ত:মন্ত্রণালয় সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এবং পরিবেশ অধিদফতরে সংশি¬ষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংস্থার প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে প্রস্তুতি সভা করা হয়। বিষয়টি কার্যকর করতে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিলবোর্ড, ব্যানার স্থাপন, লিফলেট বিলি করা হয়েছে।

শেয়ার করুন